ঢাকা, , ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শিক্ষার্থীরা যেন বিভ্রান্তির পথে না যায়: প্রধানমন্ত্রী

Sunday,15 May 16 07:50:43

শিক্ষার্থীরা যাতে জঙ্গিবাদের মতো ‘বিভ্রান্তির পথে’ না যায়, সেজন্য শিক্ষকদের সজাগ থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 

জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, “ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলাম ধর্মে কখনো বলেনি যে সুইসাইড করো। যে সুইসাইড করবে, সে দোজখে যাবে। সেই ইসলাম ধর্মের নামে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদী কার্যক্রম- এটা কারও কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।”

“আমাদের ছেলেমেয়েরা যেন এসব থেকে দূরে থাকে। তাদের যেন কেউ বিভ্রান্ত করতে না পারে”, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ‘জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৬’ এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এবারের প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের প্রতিপাদ্য ‘মানসম্মত শিক্ষা, জাতির প্রতিজ্ঞা’।

কেউ যাতে ‘বিভ্রান্তিমূলক’ কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে না পড়ে- তা নিশ্চিত করতে ‘যথাযথ’ শিক্ষার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

“প্রত্যেক স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসায় এই শিক্ষাটা দেওয়া দরকার। এই ধরনের বিভ্রান্তিমূলক কাজে কেউ যেন লিপ্ত না হয়।… আমরা সন্ত্রাসী-জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করি না। আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি।”

আজকের যে শিশু আগামী দিনে দেশ পরিচালনা করবে, তাদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত ও উন্নত চরিত্রের অধিকারী হিসেবে গড়ো তোলার এবং তাদের মেধার বিকাশ ঘটানোর ওপরও প্রধানমন্ত্রী জোর দেন।

শিক্ষকদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “শিক্ষকতা হচ্ছে একটা মহান পেশা। আমরা সব সময় শিক্ষাকে, শিক্ষককে মর্যাদা দিই। এখনো আমি আমার শিক্ষকদের পেলে মর্যাদা দেই। সোনার বাংলা গড়তে যে সোনার ছেলেমেয়ে দরকার, সেই সোনার ছেলে গড়ার কারিগর হচ্ছেন আমাদের শিক্ষক।”

প্রতিটি শিশুকে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে আদর্শ নাগরিক হিসাবে গড়ে তোলার কথা বলেন সরকারপ্রধান।

তিনি আবারও বলেন, “আমরা চাই, আমাদের ছেলে মেয়েরা সুনাগরিক হিসাবে গড়ে উঠুক। ছেলেমেয়েরা যেন বিভ্রান্তির পথে না যায়। মাদকাসক্তি বা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে কেউ যেন জড়িত না হয়।”

এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃতিত্বের জন্য ১৯ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ২০১৫ সালের ‘প্রাথমিক শিক্ষা পদক’ বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি শিক্ষার পাশামাশি খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চার ওপরও গুরুত্ব দেন।

পাঠকের মন্তব্য