ঢাকা, , ২৩ অক্টোবর, ২০২০

উন্নয়নের শৎকার // হারুনরশিদ

টাইমসনিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Sunday,26 July 20 05:38:59

''উন্নয়নের শৎকার''
সূর্যের দৈন্যতা নিয়ে পৃথিবীর হলুদ ঘাসগুলো বেঁচে আছে
এইখানে বুকচাপা নিঃশ্বাসে মহাপৃথিবীর খিদে
বাতাসে তুমুল শোরগোল
পথে পথে মৃত্যুর ব্যারিকেড
শোকার্ত রাজপথে শুয়ে আছে দু' চারটা মুমুর্ষ কুকুর।

আমার ক্ষুধার কাছে হাটু গেড়ে বসে অাছে কবিতা ও প্রেম
আমার ক্ষুধার কাছে ঈশ্বরের নত মুখ
আমার ক্ষুধার কাছে পরিতাজ্য রাষ্ট্রের সঙ্গম প্রস্তাব
আমার ক্ষুধার কাছে বিবস্ত্র রাজনীতির পোয়াতী শরীর
আমার ক্ষুধার কাছে বিপন্ন সংবিধান
আমার ক্ষুধার কাছে কড়জোরে ক্ষমা চায় মৃত্যুর শীতল শহর
তবু কে তুমি?
কে তুমি মেঘ ও মেঘের গহীনতম মেঘে অম্ল বৃষ্টি ঝরাও?
কে তুমি নৈঃশব্দে তুলে আনো শিশিরের নরম অাদর?

ধারালো বিষ ফণা তুলে আছে হিম কুয়াশার দাঁত
মেঘের কান্না শুষে বেড়ে উঠছে স্যাঁত স্যাঁতে জীবন
জানি, এইসব কুয়াশায় ও মেঘে তবু জমে অাছে বিষের বটিকা
স্বার্থের নিঃশ্ছিদ্র বলয়।

নীভে যাওয়া আলোর নীচে আধার মেলেছে তার উদ্ধত ডানা
হওয়া থেকে ঝরে পড়ছে লাস্যময়ী কাম ও শিৎকার
কে তুমি হলুদ পরাণের ভিতর ছড়িয়ে যাও নক্ষত্রের উপহাস?

আমাবশ্যায় পুড়ে গেছে আধেক জীবন
আধেক তার খেয়ে গেছে গ্রহণের ভয়
এই মরা ঘাসে, এই জলহীন জংলায় পিঠ পেতে বসে আছি
আর কত বোঝা চাপালে শেষ হবে উন্নয়নের শৎকার?

পাঠকের মন্তব্য