ঢাকা, , ২৯ নভেম্বর, ২০২০

বিভিন্ন জেলায় বজ্রপাতে ২০ জনের মৃত্যু

Sunday,15 May 16 07:50:43

দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাতের সময় বজ্রপাতে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) দুপুর থেকে রাত সোয়া ৮টা পর্যন্ত বাংলানিউজের স্টাফ ও ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্টদের পাঠানো খবর:

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী কোনোপাড়া কাঠেরপুল এলাকায় বজ্রপাতে দুই যুবক মারা গেছেন। এসময় আরও এক যুবক আহত হয়েছেন। সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন-মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর হাতারপাড়ার বাদল মোল্লার ছেলে নোমান হাসান লিংকন (২১) ও কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার উপজেলার বরুর গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে মো. শাহেদুল ইসলাম শাহেদ (২৩)।

আহত রাইয়ানকে (২০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান জানান, স্থানীয় কনকর্ড বালুর মাঠে ফুটবল খেলার সময় বজ্রাহত হন ওই তিন যুবক। এ অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর ওই দু’জনের মৃত্যু হয়।

সিরাজগঞ্জ: সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলায় বজ্রপাতে শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

পাঙ্গাসিয়াপুর ইউনিয়নের বৈকুণ্ঠপুর, চকনুর ও বেজগাছী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পাঙ্গাসিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুস সালাম জানান, সন্ধ্যায়
বৈকুণ্ঠপুর এলাকায় মাঠে গরু আনতে যাওয়ার পর বজ্রপাত হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। এসময় তার দু’টি গরুও মারা যায়। একই সময় বজ্রপাতে পাশের চকনুর এলাকার একটি শিশুর মৃত্যু হয়। মাঠে খেলতে গিয়ে এ দুর্ঘটনার শিকার হয় শিশুটি।

চেয়ারম্যান আবদুস সালাম শিশুটির নাম জানাতে পারেননি।

তিনি আরো জানান, সন্ধ্যায় বেজগাছী এলাকায় বজ্রপাতে আনোয়ার হোসেন নামে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। আনোয়ার স্থানীয় একটি মাদ্রাসার শিক্ষক।

কিশোরগঞ্জ: বজ্রপাতে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় তিনজন ও হোসেনপুর উপজেলায় একজন মারা গেছেন।

নাটোর: বিকেলে বজ্রপাতে নাটোরের লালপুর উপজেলার রঘুনাথপুর ও উত্তর লালপুর গ্রামে মোবারক হোসন (৩৫) ও সাহারা খাতুন (৪৮) নামে দু’জন মারা গেছেন।

নিহত মোবারক হোসন উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত মো. আলীর ছেলে এবং সাহারা খাতুন উত্তর লালপুর গ্রামের বান্টু আলী শেখের স্ত্রী।

লালপুর থানার ওসি আব্দুল হাই বাংলানিউজকে জানান, মোবারকের নামে  একাধিক মামলা রয়েছে।

হবিগঞ্জ: বিকেল সাড়ে ৩টায় হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামে বজ্রপাতে হাবিব মিয়া (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিকেলে বৃষ্টির মধ্যে হাবিব বাড়ির পাশের হাওরে বোরো ধান কাটছিলেন। এসময় বজ্রপাত হলে হাবিব গুরুতর আহত হন। এ অবস্থায় হাবিবকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
রাজশাহী: রাজশাহী মোহনপুরে উপজেলার ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নে জমিতে ধান কাটার সময় বজ্রপাতে তিন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় অপর এক কৃষক গুরুতর অহত হয়েছেন।
বিকেল পৌনে ৪টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন- ঘাষিগ্রাম ইউনিয়ন নারায়ণপুর গ্রামের সামছুদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (২৪), হাততৈড় গ্রামের আব্দুল আজিজ (৫০) ও ডাঙ্গাপাড়ার নিতেনের ছেলে সৈতেন চন্দ্র (৩৫)।
এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ধুরইল ইউনিয়নে পোল্লা কুড়িগ্রামের জালাল উদ্দিন (৩০)। তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
এদিকে, এ দুর্ঘটনার পর স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃত তিনজনের পরিবারের সদস্যদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দেন।
নীলফামারী: দুপুরে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুড়া ইউনিয়নের ফুলেরঘাট গ্রামে বজ্রপাতে লালবিবি (৪০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

মাগুড়া ইউনিয়ন ইউপি চেয়ারম্যান মাহামুদুল হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, দুপুরে বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাত হলে আলম হোসেনের স্ত্রী লালবিবি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় বজ্রপাতে ইউনুস সিকদার (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আয়শা বেগম (৪০) নামে এক গৃহবধূ বজ্রাহত হয়েছেন।

বিকেলে সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার বড়হারজী গ্রামের একটি মাঠে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দাউখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান বাংলানিউজকে জানান, বিকেলে ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টি শুরু হলে ইউনুস ও তার ভাবি আয়শা বেগম বাড়ির সামনের মাঠে গরু আনতে যান। এসময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই ইউনুস মারা যান। এতে গুরুতর আহত হন আয়শা। এ অবস্থায় আয়শাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসাপতালে ভর্তি করা হয়েছে।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের দোবাজাইল গ্রামে বজ্রপাতে জাহানারা বেগম (৫০) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন।

দুপুর দেড়টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় তার দুই মেয়ে তাসমিনা আক্তার (৩২) ও রোমেজা আক্তার (১২) আহত হওয়ায় তাদের স্থানীয় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত জাহানারা একই গ্রামের রফিকুল ইসলাম রুকু মিয়ার স্ত্রী।

অরুয়াইল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ পরিদর্শক (এসআই) মশিউর রহমান বাংলানিউজকে জানান, দুপুরে বৃষ্টির মধ্যে বাড়ির সামনে সাংসারিক কাজ করছিলেন জাহানারা ও তার দুই মেয়ে। এসময় বজ্রপাত হলে তারা তিনজনই গুরুতর আহত হন। এ অবস্থায় পরিবারের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিলে চিকিৎসক জাহানারাকে মৃত ঘোষণা করেন।

গাজীপুর: গাজীপুরের কাপাসিয়ায় বজ্রপাতে সাত্তার আলী (২৮) ও রুবি বেগম (৩৯) নামে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।

মৃত সাত্তার আলী কুড়িগ্রামের পচাকাটা থানার সাতানা এলাকার মো. ছানাউল্লাহ বেপারির ছেলে ও রুবি বেগম কাপাসিয়া উপজেলার সিঙ্গুয়া এলাকার কাজল মিয়ার স্ত্রী।

কাপাসিয়া থানার এসআই মো. শাহজাহান মিয়া জানান, বিকেলে কাপাসিয়া উপজেলার উত্তর খামের এলাকায় আব্দুর রশীদের জমিতে ধান কাটছিল সাত্তার আলী। এসময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। অপর দিকে, প্রায় একই সময় কাপাসিয়ার সিঙ্গুয়া এলাকায় মাঠে গরু আনতে গিয়ে বজ্রপাতে মারা যান রুবি নামে ওই নারী।

পাঠকের মন্তব্য