ঢাকা, , ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ছেলের সুখের খবর পরিণত হল শোকের খবরে

Sunday,15 May 16 07:50:43

ঢাকা : দুপুরে গড়ালেই হাতে আসবে এসএসসির রেজাল্ট। তারপর মা-বাবাসহ বন্ধু-স্বজনেরা মিলে মিষ্টিমুখ করবে— এমন আনন্দ ছিল চোখেমুখে। কিন্তু তার আগে তো কিছু একটা করা চাই। ক্রিকেট খেলে সময় কাটাতে সোজা দৌড় মাঠে। তারপর?

 

তারপর বাবুল শিকদার দিদার (১৭) মাঠ থেকে ফিরল লাশ হয়ে। না, সন্ত্রাসীর হাতে নয়, তাকে খুন করল খেলার বন্ধুরা! দুপুরে ঠিকই রেজাল্ট এলো। ফলাফল জিপিএ-৫। কিন্তু এ রেজাল্ট দিয়ে কী করবেন বাবুলের বাবা?

 

বাবা মোস্তফা শিকদার বুক চাপড়ে তাই বলছেন, ‘আমার ছেলেই নাই, এখন তার ফলাফল দিয়ে কী করমু?’রাজধানীর মিরপুর থানাধীন জনতা হাউজিং মাঠে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বন্ধুদের ব্যাট-স্ট্যাম্পের আঘাতে খুন হয় বাবুল। বুধবার সকাল ১০টার দিকে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। বাবুল মিরপুরের বরবাগ আদর্শ হাইস্কুল থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল। 

বাবুলের চাচা খোরশেদ আলম বাংলামেইলকে জানান, সকাল ১০টার দিকে জনতা হাউজিং ধানক্ষেত খেলার মাঠে বন্ধুদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে যায় বাবুল। খেলার একপর্যায়ে তার কথা কাটাকাটি হয় অন্যদের সঙ্গে। তখন বন্ধুরা উত্তেজিত হয়ে ক্রিকেট ব্যাট ও স্ট্যাম্প দিয়ে তার মাথায় ও ঘাড়ে আঘাত করে। 

 

পরে আহত অবস্থায় বাবুলকে দ্রুত ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবন্নতি হলে আগারগাঁও নিউরো সায়েন্স ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে নিয়ে যায় পরিবারের সদস্যরা। সেখানেই দুপুর পৌনে ১টার দিকে মারা যায় বাবুল। 

 

মিরপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান বাংলামেইলকে বলেছেন, ‘আমরা খবর পেয়ে আগারগাঁওয়ের হাসপাতালে গিয়ে স্কুলছাত্র বাবুলের মৃতদেহ উদ্ধার করি। ময়নাতদন্তের জন্য বিকেল ৩টার দিকে তার মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।’ 

 

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাবুল শিকদারের তিন বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম বলতে পারেননি এসআই শাহজাহান।

পাঠকের মন্তব্য